WELCOME to BENGALI BLOG of
SRI SRI MOHANANANDA BRAHMACHARI

Saturday, May 16, 2015

*****ভক্তের দৃষ্টিতে শ্রীগুরুদেব শ্রীমোহনানন্দ *****

 *****ভক্তের দৃষ্টিতে  শ্রীগুরুদেব শ্রীমোহনানন্দ *****

   সাঁইথিয়াতে শ্রীশ্রীমোহন মন্দিরে গুরুদেব নিজে আমাকে আমার স্ত্রীকে দীক্ষা মন্ত্র দেনমনে পড়ে দীক্ষার আগে আমার জীবন কেমন যেন দিশাহীন ভাবে চলছিল,নানা ধরনের সমস্যা ছিল,কোন নিয়মানুবর্তিতার নামগন্ধ ছিলনা জীবনেএমন অবস্থাতে দীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিইএকান্তই আমার নিজস্ব সিদ্ধান্ত ছিলদীক্ষার পর জীবনে কোন পরিবর্তন আসতে পারে এমনটাও ভাবিনিদীক্ষা নিতে যাওয়ার আগে স্ত্রীকে জানাই সে সানন্দে আমার অনুগামী হয়

আমরা স্নান ইত্যাদি করে পবিত্র মনে শ্রীশ্রীগুরু সমীপে যাই,শ্রীশ্রীগুরুর হাস্যোজ্জ্বল মুখ দেখে আনন্দে মন ভরে ওঠেদীক্ষা অনুষ্ঠান গুরু নিজেই পরিচালনা করে ছিলেনহোম ইত্যাদি খুবই বৈদিক সাত্বিক ভাবে তিনি করেছিলেনকানে মন্ত্র পাওয়ার পর অচিরে তেমন কিছু মনে হয়নিতার শ্রীপাদপদ্মে প্রনাম করে খুবই সামান্য অর্থ গুরুপ্রনামী দিইতার আশীর্বানী কামনা করিউনি সহাস্যমুখে সস্নেহে আমায় একটি মন্ত্র, পূজা ওআচার বিষয়ের বই দেনআমার প্রতি তার ব্যবহারে এবং তার প্রতি আমার ব্যবহারে কোন বাহুল্য ছিলনা,আমি তার মহাপ্রয়ান তক সেই নিয়মে চলেছি

দীক্ষার দিন রাত্রিতে মনের মধ্যে এক ধরনের অবর্ণনীয় আলোড়ন অনুভব করেছিলাম,যা প্রভাত পর্যন্ত ছিলমনে সেদিনের অর্থাৎ দীক্ষার পরের দিন প্রভাত সূর্যকে যেন নতুন চোখে দেখলামআমাদের নতুন এক নিয়মঅনুসারী জীবনপথে আমাদের চলা শুরু হল,যা পূর্বের জীবনের থেকে ভিন্নসেদিন থেকে আজ পর্যন্ত আমাদের কোন ধরনের সমস্যা পীড়িত করেনি

অবিশ্বাস্য মনে হলেও সর্বদা অনুভব করি আমাদের মাথার উপর এক অদৃশ্য ছাতা বর্তমান,যা আমাকে,আমার স্ত্রীকে আমার দুটি কন্যাকে (বড়টি বিবাহিত, এক নাতনী আমার,এবং জামাতা) মাতা ঠাকুরানীকে ঝড়,দৈব দুর্বিপাক থেকে নিয়ত রক্ষা করে চলেছেঅধিকাংশ মানুষ কি ভাবে আমি জানিনা কিন্ত Spiritual life এর স্বাদে জীবনকে বৈভবময় করতে একজন সদ্ গুরুর দেখা পাওয়া তার সান্নিধ্যে আসা খুবই জরুরীশ্রীগুরু শ্রীশ্রী মোহনানন্দজী নিঃসন্দেহে সেই সব সদ্ গুরদের মধ্যে একজন অন্যতম ব্যক্তিত্বতার জীবনকে জেনে ধন্য হওয়া সৌভাগ্যবানদের মধ্যে আমিও যে একজন এই বিশ্বাসে আমি দৃঢ় বিশ্বাসী।

ব্লগ  লিখন ---শ্রী অরুণ কুমার দত্ত 

Google+ Followers

Followers

Total Pageviews

Translate