WELCOME to BENGALI BLOG of
SRI SRI MOHANANANDA BRAHMACHARI

Saturday, June 20, 2015

***আমার জীবনে শ্রীকৃষ্ণ ও শ্রীশ্রী মহারাজ-১***

***আমার জীবনে শ্রীকৃষ্ণ ও  শ্রীশ্রী মহারাজ-১***
                                 ***আমার জীবনে শ্রীকৃষ্ণ ও  শ্রীশ্রী মহারাজ-১***                   


আমার শৈশবকাল থেকে শ্রীশ্রীমহারাজ নানা রূপে,নানা লীলায় বারে বারে এই পরম সত্য প্রকাশ করতে চেয়েছেন----"তিনি আর শ্রীকৃষ্ণ এক "---এই মহাসত্য প্রকাশ করতেই যেন নানা ছলনা ও লীলার অবতারণা।শ্রীকৃষ্ণ মূর্তিতে বহুবার তাঁকে দর্শন করেছি ,শ্রীগুরু ইষ্ট রূপেও তিনি শ্রীকৃষ্ণ-এর সাথে এক ও অভিন্ন  হয়েই আছেন ---তবুও বারে বারে----" আমাকে তুমি চিনলে না ,"--"তোমার কি কিছুই মনে পড়ে না,"---একথা তিনি একবার নয় ,বহুবার বলেছেন ---আর তিনি কে ---সে তিনি ছাড়া আর কে জানে ---"ভক্তামাম অভিজানাতি "--গীতায় তিনি বলেছেন---একমাত্র ভক্তরাই আমাকে জানতে পারে ---তা সে তিনি কৃপা করে না জানালে ভক্তের সাধ্য কি তাঁকে জানতে পারে !!যেই মায়ার আবরণ দিয়ে নিজেকে ঢেকে দিলেন----কার সাধ্য তাঁকে ধরে ?!!তিনি স্বেছাময় ,স্বতন্ত্র ----তিনি নিজ ইচ্ছায় ধরা না দিলে কেউ তাঁকে ধরতে পারে না।এ জগতের কোনো নিয়ম ,যুক্তি সেখানে খাটে না -- 

 ভগবান শ্রীকৃষ্ণের সাথে যে আমার জন্মান্তরের সম্বন্ধ এ কথা শ্রীশ্রীমহারাজ আমায় বলেছেন ---যে সময় মনের অজ্ঞানতা,অন্ধকারে  তাঁকে ভুলতে বসেছি----সেসময় বারে বারে আঘাত হেনে পত্র লিখেছেন ----"তুমি তো শ্রীকৃষ্ণকে ভুলেই গেছ, কোথায় তোমার সেই মোহন প্রেম ?সেই প্রেম থাকলে --মীরার মতো বলতে পারতে ---"জাঁকে সির মৌর মুকুট মেরো পতি সোই---"
১৯৮৪ সালে  শ্রীশ্রীমহারাজ-এর সাথে রাজস্থান Tour -এ গিয়ে নানা ঘটনায়  সেই ছোটবেলার মতো ,লীলাময় শ্রীকৃষ্ণের নানা লীলা প্রকাশিত হয়।

আবার ছোটবেলায়  অমরনাথের পথে তিনি নিজমুখে আমায় বলেন ---"তোমার সাথে আমি সাত জন্ম ধরে আছি---"পরে আবার প্রশ্ন করলে বলেন,------"ওসব symbolic.ভগবানের সাথে আমাদের নিত্য সম্বন্ধ।  "

লীলা সংবরণের পূর্বে দেখা দিয়ে  বলেন,----"সব শ্রীকৃষ্ণের ইচ্ছায় ঘটছে জানবে।তোমার জীবন সম্পূর্ণরূপে শ্রীকৃষ্ণের উপর নির্ভরশীল ,কারো উপর নয়।শ্রীকৃষ্ণই মোহন রূপে তোমার জন্ম জন্মান্তরের চিরআরাধ্য দেবতা।"   
  ************************************************************************************
আজ তাঁর মোহনলীলা লিখতে বসে অনেক কথাই মনে পড়ছে।আমার জীবনের দিনও একদিন  শেষ হয়ে যাবে,চলে যাব ----তখন হয়তো ব্লগ-এর এই লেখা ভবিষ্যতে তাঁর মোহনলীলা-র নীরব সাক্ষী হয়ে থেকে যাবে।           

Google+ Followers

Followers

Total Pageviews

Translate