WELCOME to BENGALI BLOG of
SRI SRI MOHANANANDA BRAHMACHARI

Tuesday, July 18, 2017

****চিঠিতে প্রশ্ন ও উত্তরে শ্রী শ্রী মোহনানন্দ ব্রহ্মচারী মহারাজ=(৩)****

****চিঠিতে প্রশ্ন ও উত্তরে শ্রী শ্রী মোহনানন্দ ব্রহ্মচারী মহারাজ=(৩)****

শ্রী শ্রী মোহনানন্দ ব্রহ্মচারী মহারাজ কে এক ভক্তিমতী মা চিঠিতে এই প্রশ্ন করেন -----
প্রশ্ন : বাবা আপনি  নানা বিরুদ্ধ পরিবেশে এতো ধনী ও সংসারীদের মধ্যে সর্বদাই ঘুরে বেড়ান ----এতে কি আপনার কষ্ট হয় না ? কেবল দেখেই আমাদের কষ্ট হয়। 
এই চিঠির উত্তরে শ্রী শ্রী মহারাজ লেখেন :---
=======================================
স্নেহের  মা ,
তোমার পত্র পেয়েছি।তুমি একটু ভুল বুঝেছো। মহাপুরুষদের বিভিন্ন কর্মপ্রণালী হলেও মহাপুরুষরা তো সমাজের মধ্যেই আসেন। তাঁরা আপ্তকাম। নিজেদের কর্তব্য বলতেও তাঁদের ত্রিভুবনে কিছু নাই এবং প্রয়োজন বলতেও তাঁদের কিছু নাই ,তথাপি অতন্দ্র  হয়ে তাঁরা বিশ্বভুবনে কর্মরত আছেন।  
আমার মনে হয় ,আমাদের সাধুদের এখন সমাজ কে কিছু দেওয়া দরকার। আমরা অনেকদিন হতে সমাজ কে কিছু দিই নাই। কেবল আপন আপন সাম্প্রদায়িকতা ,বেশভুষা,আচার -ব্যবহার এসব নিয়েই আছি।  সমাজে আজকাল সাধুদের সম্মান নাই। এখন  সময় এসেছে ,-----সাধুদের কিছু দেওয়া দরকার সমাজ কে। 
তাই আমার কর্তব্য আমি স্থির করে নিয়েছি। গৃহস্থের দ্বারে দ্বারে যেখান হতেই আহবান আসবে ,ঘুরে ঘুরে সর্বভাবে জনসমাজের সেবা করে যাবো।সেবা অনেক ভাবেই করা যায়। কায়িক ,বাচসিক,মানসিক,জাগতিক,আধ্যাত্মিক। এইরূপ ভাবেই জনসমাজের সর্বস্তরে,সর্ব গৃহের দ্বারে দ্বারে 
ঘুরে বেড়ালে সর্বভাবে সেবা করবার প্রকৃষ্ট সুযোগ পাওয়া যায়। শ্রী শ্রী গুরুদেব ও বলতেন ----"বহতা পানি রমতা সাধু তে ময়লা ধরে না---- ''  তাঁর সেই উপদেশ পালনেরই চেষ্টা করছি। 
           এক জায়গায় আজকাল তিন রাত্রির বেশি অবস্থান করতে পারি না-----কষ্টই হয় ---এমন একটা অবস্থা এসেছে।এক জায়গায় অধিকদিন থাকলে অভ্যাসের মালিন্য ,মমতা, নিজের স্বাচ্ছন্দের  কামনা প্রভৃতি এসে পড়বার আশংকা থাকে। মহাপুরুষদের আচরণ বিধির মধ্যে বিভিন্নতা থাকলেও ভিতরে তাঁদের একটা বিন্দুতে সম্পূর্ণ সময় ভাব। যদি গহন সমুদ্র হয় তবে ময়লা সব তীরে তরঙ্গাভিঘাতে ফেলে দেয়। 
                         নদী  বিধায় -----নদী  শহর ,জনপদের মধ্য দিয়েই বয়ে যায় -----তার জলে ময়লা ,শহরের জনতা ,লোক সঙ্গ বিষয়ের আবর্জনা আসবেই। তবে তারা ভেসে যায় ------তাই কোনো ময়লাতেই নদীর আসক্তি ও নেই ----ক্লিন্নতাও নেই। আমি আশ্রমে বেশিদিন থাকার  অবকাশ পাই না। আশ্রমে থাকলেই আশ্রমের নানা অভাব ,অভিযোগ এসব শুনতে হয় ,এসব শুনতে আমার ভালো লাগে না। বাহিরে থাকলে আশ্রমের চিন্তা আর করতে হয় না ----ইহা ও শ্রীভগবানের কৃপা ও অনুগ্রহ বলেই মনে করি। 
স্নেহাশীর্বাদ নিও। শীঘ্র পত্র দিও। 
          

Google+ Followers

Followers

Total Pageviews

Translate